| ঢাকা, বাংলাদেশ | মঙ্গলবার, ৪ অক্টোবর ২০২২ |
1663211019.jpg 1647622201.jpg

বিভাগ : প্রবাস তারিখ : ১৯-০৯-২০২২

ওমানের জাতীয় টুপি তৈরি করছেন নওগাঁর নারীরা


  ওমান প্রতিনিধি


ভয়েস এশিয়ান, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২।। বাড়ির উঠানে খোশগল্পের মাঝেই নিপুণ হাতে টুপির কারুকাজে ব্যস্ত এক দল নারী। বাংলাদেশের সারর কাছে টুপি নামে পরিচিত হলেও মধ্যপ্রচ্যের দেশ ওমানে গিয়ে এই টুপি হয়ে যায় কুপিয়া। দেশটির জাতীয় টুপিকে এ নামেই ডাকা হয়।

নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার ভালাইন, মধুবন, কুঞ্জবন, খাজুর, রনাইল, খোসালপুর, সুলতানপুর, উত্তরগ্রাম শিবগঞ্জ, গোয়ালবাড়ি এবং তাতারপুরসহ অন্তত ৫০ থেকে ৬০টি গ্রামে বিভিন্ন বয়সী নারী বিশেষ ধরনের এসব টুপি তৈরি করছেন।

ওই অঞ্চলের নারীদের হাতে তৈরি এসব টুপি ওমান ছাড়াও পাকিস্তান, সৌদি আরব, মালয়েশিয়া, কুয়েত, কাতার, বাহরাইনসহ মধ্যপ্রাচের বিভিন্ন দেশে যাচ্ছে। মানভেদে একেকটি টুপি দেড় থেকে সাড়ে তিন হাজার টাকায়ও বিক্রি হয়।

রমজান আর ঈদুল ফিতরকে ঘিরে টুপি তৈরির কারিগররা পার করছেন এখন ব্যস্ত সময়। সাদা কাপড়ে তাদের সুইয়ের ফোঁড়ে ফুটে উঠছে নান্দনিক নকশা। পরে বিশেষ কায়দায় সেলাই ও ভাঁজে এই কাপড়ই হয়ে যাচ্ছে টুপি।

বোতাম, চেন, দানা ও মাছকাটা নামে চার ধরনের টুপি সেলাই করা হয়। কয়েক হাত বদলের পর একটি পূর্ণাঙ্গ টুপি তৈরি হয়। টুপির মধ্যে বেশি সময় ও পরিশ্রম হয় দানা সেলাইয়ে। টুপি ব্যবসায়ীরা টুপি তৈরির সব উপকরণ কারিগরদের সরবরাহ করেন।

মানভেদে একেকটি টুপিতে নকশা তুলতে ২০-২৫ টাকা আবার কোনো টুপিতে নকশা করতে ১০০ থেকে ২০০ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হয় কারিগরদের। এতে টুপিতে নকশা তৈরির কাজ একজন নারী কারিগরের মাসে তিন থেকে চার হাজার টাকা আয় হয়। টুপিতে নকশা তোলার কাজ করে স্বাবলম্বী হয়েছেন অনেক নারী। অভাবের সংসারে ফিরেছে সুখ ও স্বাচ্ছন্দ্য।

প্রায় একযুগ আগে জেলার মহাদেবপুর উপজেলায় টুপি ব্যবসা শুরু করেছিলেন ফেনীর একদল ব্যবসায়ী। পরে প্রশিক্ষণ দিয়ে টুপি সেলাইয়ের কাজ শুরু করেন তারা। এসব টুপির কারিগর মূলত নারীরা। টুপিগুলো তৈরির পর ঢাকার চকবাজার, বাইতুল মোকাররম মসজিদ মার্কেটসহ বিভিন্ন মার্কেটে পাঠানো হয়। সেখানকার ব্যবসায়ীরাই মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে এগুলো রপ্তানি করে থাকেন।

উপজেলার টুপি ব্যবসায়ী মাজহারুল ইসলাম জানিয়েছেন, প্রায় ১০ বছর ধরে এই এলাকায় বিদেশি টুপি তৈরির কাজ শুরু হয়। আগে শুধু ‘কুপিয়া’ টুপি এখানে তৈরি হতো। এটি ওমানের জাতীয় টুপি। এখন পাকিস্তান, সৌদিআরব, মালয়েশিয়া, কুয়েত, কাতার, বাহরাইনসহ মধ্যপ্রাচের বিভিন্ন দেশে এখানকার তৈরি টুপি যাচ্ছে। এসব টুপি ঢাকার চকবাজার, বাইতুল মোকাররম মসজিদ মার্কেটসহ বিভিন্ন মার্কেটে পাঠানো হয়। সেখানকার ব্যবসায়ীরা আবার মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে এসব টুপি রপ্তানি করেন। কাপড় ও নকশাভেদে এসব টুপি ১ হাজার থেকে দেড় হাজার টাকায় বিক্রি হয়।

এদিকে যে দেশের জাতীয় টুপি বানানো হচ্ছে সেই ওমান দেশটি কোথায় তা ঠিকভাবে জানেনও না অনেক নারী কারিগররা।

উপজেলার খোসালপুর গ্রামের রাবেয়া খাতুন জানিয়েছেন, প্রতিটি টুপি তৈরি থেকে ২০ থেকে ২৫ টাকা করে পেয়ে থাকেন তিনি। দশ বছর আগে স্বামীর সঙ্গে মহাদেবপুর সদরের খোসালপুর এলাকায় একটি বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকা শুরু করেন। এখানে এসে এক বছর পর এক প্রতিবেশির উৎসাহে শুরু করেন টুপিতে নকশা তোলার কাজ। স্বামী ও নিজের আয় দিয়ে এখন সংসার চলছে স্বাচ্ছন্দ্যে। নিজেদের উপার্জিত টাকা দিয়ে তিন শতক জমি কিনে তাতে ইটের বাড়িও তুলেছেন।

রনাইল গ্রামের শামিমা আক্তার বলেন, স্বামী দিন মজুরের কাজ করে। তার একার আয় দিয়ে আগে টেনেটুনে কষ্ট করে সংসার চলত। অনেক সময় আধপেটা করে খেয়ে থাকতে হত। তবে গত চার-পাঁচ বছর টুপিতে নকশা তোলার কাজ শুরু করে এখন সংসার ভালোই চলছে। বাড়িতে হাঁস-মুরগি, ছাগল ও গরু পালন করছে তারা। এক মেয়ে ও ছেলে লেখাপড়া করে। কলেজে পড়ুয়া মেয়ে লেখাপড়ার পাশাপাশি মায়ের সঙ্গে টুপিতে নকশা তোলার কাজ করে।

মহাদেবপুরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিজানুর রহমান বলেন, মহাদেবপুরের নারীরা টুপি তৈরি করে স্বাবলম্বী হওয়ার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত তৈরি করেছে। তাদের প্রচেষ্টার কোনো তুলনা হয় না। এসব কারিগররা যাতে সঠিক মজুরি পান এবং কোনো ধরণের হয়রানির শিকান না হন সেজন্য প্রশাসন তাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা করে আসছে। এই সব কারিগরদের আরও উন্নত প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

 

 





 

প্রবাস

বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠাতে কাতার প্রবাসীদের উৎসাহ রাষ্ট্রদূতের

মালদ্বীপে প্রধানমন্ত্রীর ৭৬তম জন্মদিন উদযাপন

তুরস্ক-বাংলাদেশ বিজনেস ফোরামের আলোচনা সভা

জি-টু-জি চুক্তির অধীনে মালয়েশিয়া যাচ্ছেন ১০ হাজার বাংলাদেশি

মালয়েশিয়ায় কংক্রিটের ধ্বংসস্তূপে চাপা পড়ে বাংলাদেশির মৃত্যু

সৌদিতে মানবেতর জীবনযাপন করছেন বাংলাদেশিরা

আকামা নবায়নের জটিলতা নিরসন চায় কুয়েত প্রবাসীরা

মালদ্বীপে মারা গেলেন বাংলাদেশী শ্রমিক মোঃ সাইদ শেখ

মালদ্বীপে হার্ট অ্যাটাকে প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যু

মালদ্বীপ প্রবাসী বাংলাদেশীদের সাথে মতবিনিময় করলেন হাইকমিশনার

প্রবাস বিভাগের আরো খবর


1585646778.gif 1585646793.jpg 1585646805.gif

1615174445.gif

1660642186.jpg




Copyright © 2017-2022   |   Voice Asian - Asian Based News Portal
Contact: voiceasianinfo@gmail.com

   
StatCOUNTER