| ঢাকা, বাংলাদেশ | শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ |
1591159570.jpg 1598949083.jpg

বিভাগ : জাতীয় তারিখ : ১৬-০৯-২০২০

ব্যবসায়ীরাই খলনায়ক!


  ভয়েস এশিয়ান ডেস্ক


ভয়েস এশিয়ান, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০।। ইলিশ পেয়েই পেঁয়াজ বন্ধ করলো ভারত। এ সুযোগে আগের কম দামে কেনা পেঁয়াজ বাড়তি দামে বিক্রি শুরু করেছেন দেশের এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী।

সংশ্লিষ্ট সচেতন মহল বলছে, একটি খবরে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে বাজারে পেঁয়াজের মূল্য যেভাবে বৃদ্ধি করা হলো তার কোনো যুক্তিসঙ্গত কারণ নেই। দেশে পেঁয়াজের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে, এ নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তর ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মনিটরিং টিম দিয়ে ঢাকার আনাচেকানাচে প্রতিটি বাজারে এবং ঢাকার আশেপাশে নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর, সাভারসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সাঁড়াশি অভিযানের দাবি উঠেছে।

জানা গেছে, বাংলাদেশে প্রতি বছর পেঁয়াজের চাহিদা ২৪-২৫ লাখ মেট্রিক টন। উৎপাদন হচ্ছে ২৩ লাখ মেট্রিক টন। কিন্তু ৩০ শতাংশ পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে যায়। ফলে বছরে ঘাটতি থাকে ৮ থেকে ৯ লাখ মেট্রিক টন।  এই ঘাটতি মোকাবিলায় বছরে ৮ থেকে ৯ লাখ টন পেঁয়াজ আমদানি করা হয়।

বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশনের পেঁয়াজের উৎপাদন ও বাজার পরিস্থিতি নিয়ে করা সর্বশেষ প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে দেশে উৎপাদিত পেঁয়াজ পাঁচ লাখ ২৫ হাজার মেট্রিক টন মজুদ রয়েছে। যা নিয়ে আপাতত পেঁয়াজের ঘাটতির সম্ভাবনা নেই।

আগামী মার্চ-এপ্রিলে নতুন মৌসুমের পেঁয়াজ আসার আগ পর্যন্ত স্থানীয় চাহিদা মেটাতে অল্প কিছু পেঁয়াজের প্রয়োজন হতে পারে। ফেব্রুয়ারি থেকে আগাম পেঁয়াজ বাজারে আসবে। এ অবস্থায় ভারতের বিকল্প দেশ থেকে আমদানির বিষয়টি বিবেচনা করার পরামর্শ দিয়েছে সংস্থাটি।

পেঁয়াজ আমদানি করতে বিকল্প বাজার খোঁজা হচ্ছে জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেছেন, ‘ভারত ছাড়াও অন্য দেশ থেকে পেঁয়াজ আসা শুরু করেছে। এ নিয়ে দেশের মানুষের চিন্তিত হওয়ার কিছুই নেই।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এক বছর আগে ২০১৯ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর ভারত হঠাৎ করে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ায় বাংলাদেশের মানুষকে চরম বিপাকে পড়তে হয়েছিল। তখন মোদি সরকারের কঠিন সিদ্ধান্তের কারণে মিসর, তুরস্ক, পাকিস্তানসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে বিমানে করে পেঁয়াজ আনতে হয়েছে।

এর আগে যুগের পর যুগ তিস্তা চুক্তি ঝুলিয়ে রাখলেও হঠাৎ করে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি করে ফেনী নদীর পানি ত্রিপুরায় নিয়ে গেছে ভারত। রেল, নৌ, সড়ক ট্রানজিট এবং বাংলাদেশের সমুদ্রবন্দর ব্যবহারসহ নানামুখী সুবিধা নিয়েছে বন্ধুদেশ ভারত। বন্ধুত্বের দোহাইয়ে এপারের মানুষ সবসময় ঠকেছে— দাবি সচেতন মহলের।

এদিকে হঠাৎ করে পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধিতে স্বল্প আয়ের মানুষদের কম টাকায় সরবরাহের জন্য টিসিবি ট্রাকে করে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করলেও তাতে সবার চাহিদা পূরণ হচ্ছে না। সরকারি বিপণন সংস্থার পণ্যবাহী ট্রাক ঘিরে ক্রেতাদের ব্যাপক আগ্রহ দেখা গেছে। ট্রাকগুলো নির্ধারিত স্থানে দাঁড়ানোর ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই দৈনিক বরাদ্দের পেঁয়াজ ফুরিয়ে যাচ্ছে।

টিসিবি জানিয়েছে, বর্তমান করোনা ভাইরাস এবং বন্যা-পরবর্তী পরিস্থিতিতে ঢাকায় ৪০টি, চট্টগ্রামে ১০টি, রংপুরে সাতটি, ময়মনসিংহে পাঁচটি, রাজশাহীতে পাঁচটি, খুলনায় পাঁচটি, বরিশালে পাঁচটি, সিলেটে পাঁচটি, বগুড়ায় পাঁচটি, কুমিল্লায় পাঁচটি, ঝিনাইদহে তিনটি ও মাদারীপুরে তিনটি করে ভ্রাম্যমাণ ট্রাকে পেঁয়াজ বিক্রি করা হচ্ছে। এ ছাড়া বাকি জেলাগুলোর (উপজেলাসহ) প্রতিটিতে দুটি করে ভ্রাম্যমাণ ট্রাকে পণ্য বিক্রি চলছে।

পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে কারওয়ান বাজার ও পুরান ঢাকার শ্যামবাজারে বিশেষ অভিযানে নেমেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মোবাইল টিম। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানকালে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর জানায়, ভারত থেকে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ হওয়ার সুযোগকে কাজে লাগাতে চায় এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী। তারা সুযোগ পেলেই পণ্যের দাম বাড়িয়ে দিয়ে সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে ফেলে।

এই সুযোগ আর দেয়া যাবে না। কোনো ব্যবসায়ী যদি অনৈতিকভাবে দাম বাড়িয়ে থাকে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. আবদুল জব্বার মণ্ডল গণমাধ্যমকে বলেন, ‘বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা ও অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের পরিকল্পনায় আজ রাজধানীর বিভিন্ন পাইকারি বাজারে অভিযান চালানো হচ্ছে। অধিদপ্তরের চারটি টিমসহ বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের তিনটি মনিটরিং টিম এই অভিযান পরিচালনা করছে।’

এদিকে ঠাকুরগাঁওয়ে বাজার মনিটরিং করার সময় বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করার অভিযোগে এক ব্যবসায়ীকে জরিমানা করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)। বাজার মনিটরিংয়ের সময় ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ-আল মামুন আড়তদারের ইনভয়েস পরীক্ষা করে আগের মূল্যে কেনা ও মজুদ রাখা পেঁয়াজ ন্যায্যমূল্যে বিক্রির নির্দেশনা দেন।  

তিনি আরো বলেন, ‘গতকালকে দুই হাজার টাকা পেঁয়াজের মণ কিনে আজকে সেই পেঁয়াজ বিক্রি করছে ৭৫ টাকা কেজি দরে, অর্থাৎ তিন হাজার টাকা মণ। যেখানে গতকাল পেঁয়াজের দাম ছিলো ৩৮ টাকা কেজি যা মণ হিসেবে ছিলো এক হাজার ৫২০ টাকা। অধিক মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রির দায়ে আড়তদার আব্দুল জব্বারকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং সেখানকার প্রত্যেকটি আড়তে ন্যায্যমূল্যের তালিকা টাঙানো হয়।

রাজধানীর শ্যামবাজারের পেঁয়াজ আমদানিকারক মো. মাজেদ বলেন, এখন চীন, মিয়ানমার, মিসর ও তুরস্ক বা অন্য কোনো বিকল্প দেশ থেকে আমদানি করা হবে। মিয়ানমার ছাড়া অন্য দেশ থেকে পেঁয়াজ আনতে এক মাস সময় লাগবে। তবে মিয়ানমার থেকে টেকনাফ বন্দর চালু হলে এক সপ্তাহে আনা যাবে। এ বিষয়ে সরকারের পদক্ষেপ নেয়া দরকার।

তিনি আরও বলেন, ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করলেও ৫০ হাজার টনের বেশি এলসি খোলা আছে। ওই পেঁয়াজের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত দেয়নি ভারত। আমদানি পর্যায়ে থাকা পেঁয়াজ দেশে এলে এর মধ্যে বিকল্প দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করে বাজার স্বাভাবিক রাখা যাবে।

 




 

জাতীয়

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন পরিপালনে ব্যর্থ বাংলাদেশ

আজ টিকিট পাবেন ৩৫০ সৌদি প্রবাসী

জাতিসংঘে বাংলায় দেয়া বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক সেই ভাষণ

প্রবাসীকর্মীর হাতে অবশেষে স্বস্তির টিকিট

জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণের দিন আজ

জলবায়ু পরিবর্তন: পৃথিবীকে রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর ৫ প্রস্তাব

সৌদি যেতে লাগবে স্মার্ট ফোন, শর্ত না মানলে জরিমানা

‘ঢাকায় হচ্ছে ১২৮ কিলোমিটার মেট্রোরেল রুট’

মহামারি ডিজিটাল পরিসেবার শক্তিকে উন্মোচিত করেছে: প্রধানমন্ত্রী

সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আবদুল মোমেনের বৈঠক রোববার

জাতীয় বিভাগের আরো খবর


1585646778.gif 1585646793.jpg 1585646805.gif

1585111810.gif

1585305234.jpg




Copyright © 2017-2020   |   Voice Asian - Asian Based News Portal
Contact: voiceasianinfo@gmail.com